সম্পাদকীয়

পেট্রল ও ডিজেলের ক্রমাগত মূল্যবৃদ্ধি!

আচার্য সত্যশিবানন্দ অবধূ্ত

গত প্রায় ৩ সপ্তাহ ধরে (গত ৩০ জুনের খবর) এ নিয়ে ২২ বার পেট্রল ও ডিজেলের মূল্য বৃদ্ধি করা হ’ল৷ পেট্রল ও ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধি মানে অন্যান্য সমস্ত নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের  মূল্যবৃদ্ধি ৷ কারণ তেলের ওপর নির্ভরশীল ট্রাক, বাস প্রভৃতি পরিবহন৷ ভোগ্যপণ্যের পরিবহন খরচ বাড়লে স্বাভাবিকভাবে তার দাম বাড়বে৷ এমনিতে করোনা সংক্রমণ রোখার জন্যে ৩ মাসের  বেশি লকডাউনের ফলে স্থানীয় কলকারখানা কার্যতঃ বন্ধ৷

সাম্রাজ্যবাদী চীনের আগ্রাসন রুখতে  হবে

আচার্য সত্যশিবানন্দ অবধূ্ত

আজকের সারা পৃথিবীর ভোগবাদী তথা পুঁজিবাদী ও জড়বাদী দুনিয়া একটা জীবন্ত আগ্ণেয়গিরির ওপর দাঁড়িয়ে রয়েছে৷ যে কোনো মুহূর্তে ভয়ঙ্কর বিষ্ফোরণ ঘটতে পারে৷ ধবংস হয়ে যেতে  পারে এই মদগর্বী সভ্যতা৷ সবাইকে মহান্ ভারতের আধ্যাত্মিক মানবতাবাদভিত্তিক তথা নব্যমানবতাদী আদর্শের কাছে নতজানু  হয়ে দীক্ষিত হতে হবে৷ এছাড়া বাঁচবার কোনো উপায় নেই৷ বিশ্বের তাবড় মনীষীরা  ভারতের এই সুমহান্ ঐতিহ্য সম্পর্কে সচেতন৷ সুপ্রাচীনকাল থেকেই কেবল আধ্যাত্মিকতার জন্যে নয় জ্ঞান-বিজ্ঞান সর্বক্ষেত্রেই এর ঔজ্বল্য বিশ্ববাসীকে আকৃষ্ট করেছে৷ তার সঙ্গে  সঙ্গে ঈশ্বরের কৃপায় এদেশের নানান্ সম্পদের প্রাচুর্যও ছিল বিশ্ববাসীর আকর্ষণের অন্যতম প্রধান ক

আবার ক্যা!!

আচার্য সত্যশিবানন্দ অবধূ্ত

সারা দেশে কোভিড্-১৯ সংক্রমণজনিত লক্ডাউন চলছে ৷ মানুষের জীবিকার রাস্তা বন্ধ৷ সাধারণ গরীব ও নিম্নমধ্যবিত্ত মানুষ অর্দ্ধাহারে, অনাহারে দিন অতিবাহিত করছে৷ লক্ষ লক্ষ পরিযায়ী শ্রমিকের হাহাকারে আকাশ বাতাস বিদীর্ণ ৷ তার মধ্যেও কোথাও কোথাও প্রচণ্ড ঘূর্ণীঝড়ে ঘরবাড়ী ধূলিসাৎ ৷  হতভাগ্য মানুষের দল আশ্রয়ের জন্যে হাহাকার করছে ৷ সারা দেশ জুড়েই বিপর্যস্ত অবস্থা ৷ জীবন ও জীবিকা দুইই চরমভাবে বিপন্ন৷ এ অবস্থায় দেশের রাজনৈতিক নেতা-নেত্রীদের উচিত দলমত নির্বিশেষে সম্মিলিতভাবে জনসাধারণের পাশে দাঁড়ানো ৷ জাত-পাত-সম্প্রদায় নির্বিশেষে সমস্ত মানুষের সর্বপ্রকার নিরাপত্তার জন্যে সচেষ্ট হওয়া ৷

মোদিজীর পুঁজিপতি প্রীতি!

আচার্য সত্যশিবানন্দ অবধূ্ত

বর্তমানে ভারতে যখন চরম অর্থনৈতিক সংকট ঘনীভূত হয়েছে, সে সময় এই সংকট থেকে উত্তরণের জন্যে পুঁজিবাদের প্রধান একনিষ্ঠ-ভক্ত-প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দেশী-বিদেশী পুঁজিপতিদের দ্বারস্থ হয়েছেন এই সংকট থেকে দেশের ১৩৫ কোটি মানুষকে উদ্ধারের প্রার্থনা নিয়ে । শুধু প্রার্থনাই নয়, তাঁদের  হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে---কয়লাখনি, বিমানবন্দর ও প্রতিরক্ষার জন্যে অস্ত্রশস্ত্রের উৎপাদন---রাষ্ট্রের এই সব অতি গুরুত্বপূর্ণ অর্থনৈতিক ইয়ূনিট । এও প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে সরকারের নিয়ন্ত্রণাধীন প্রায় সমস্ত সংস্থাগুলিতেই দেদার বেসরকারী পুঁজির আহ্বান করা হবে । যাতে করে এদের নিয়ন্ত্রণ ভার সম্পূর্ণ পুঁজিপতিদের হাতেই চলে যায় ।

‘হিংসায় উন্মত্ত পৃথ্বি নিত্য-নিঠুর দ্বন্দ্ব’

আচার্য সাত্যশিবানন্দ অবধূত

কবিগুরুর এই উক্তি আজ যেন জীবন্ত হয়ে উঠেছে৷ সমাজের সর্বত্র---সারা বিশ্বেরই এখন এই ছবি৷ আমেরিকার মত তথাকথিত অধুনিক সভ্যতার ধবজাধারী দেশে শ্বেতাঙ্গ পুলিশের হাতে নিষ্ঠুর ভাবে কৃষ্ণাঙ্গ যুবকের খুনের ঘটনায় গোটা দেশে বিক্ষোভের অগুন জ্বলছে৷ রাস্তায় পড়ে আছে কৃষ্ণাঙ্গ যুবক জর্জ ফ্লয়েড৷ তার দুটো হাত পিছমোড়া করে বাঁধা৷ আর তার ঘাড়ের ওপর হাঁটু গেড়ে বসে আছে শ্বেতাঙ্গ পুলিশ অফিসার৷ কৃষ্ণাঙ্গ যুবকটি চিৎকার করে বলবার চেষ্টা করছে, আমি আর শ্বাস নিতে পারছি না!

পরিযায়ী শ্রমিক সমস্যা ও তার সমাধান

আচার্য সত্যশিবানন্দ অবধূ্ত

বর্তমান পুঁজিবাদী অর্থনীতি ব্যবস্থার একটা মস্তবড় ত্রুটি এতদিন পরে সবার চোখে পড়ছে৷ কি রাজনৈতিক নেতা-নেত্রীরা, কি বুদ্ধিজীবীরা এতদিন এই সমস্যাটাকে দেখেও দেখছিলেন না৷ ভাবছিলেন এ তো বেশ চলছে! সমস্যা কোথায়! এখন সমস্যাটাকে কারোর চোখে আঙুল দিয়ে দেখাতে হচ্ছে না৷ সব পত্র-পত্রিকাতেই লেখা হচ্ছে৷মোবাইলে,দূরদর্শনে এটাই এখন অন্যতম প্রধান খবর৷ করোনা বাইরাসের সংক্রমণ রুখতে দেশ জুড়ে লকডাউনের পরিপ্রেক্ষিতে এই সমস্যাটি এখন দেশের জ্বলন্ত সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে৷  

নব্যমানবতাবাদই শেষ আশ্রয়

আচার্য সত্যশিবানন্দ অবধূ্ত

নব্যমানবতাবাদ কী? নব্যমানবতাবাদ তত্ত্বের প্রবক্তা মহান দার্শনিক শ্রী প্রভাতরঞ্জন সরকার তাঁর রচিত ‘প্রভাত সঙ্গীতের’ ভাষায় বলেছেন---

        ‘‘ মানুষ যেন মানুষের তরে সব কিছু করে যায়৷

  একথাও যেন মনে রাখে পশু-পাখী তার পর নয়

        তরুও বাঁচিতে চায়৷’’

কভিড-১৯-এর প্রেক্ষিতে মাইক্রোবাইটাম তত্ত্ব

আচার্য সত্যশিবানন্দ অবধূ্ত

বর্তমানের করোনা বাইরাস সারা বিশ্বে আতঙ্কের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। যে ভাবে চীনের হুবেই  প্রদেশের উহান শহর থেকে শুরু করে সমগ্র চীন, ইতালি, স্পেন, ইংল্যান্ড, আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্র, ইরান , ভারত, পাকিস্তান সহ প্রায় সমস্ত রাষ্ট্রেই ছড়িয়ে  পড়েছে  ও প্রায় সর্বত্রই এর থেকে ত্রাহি ত্রাহি রব উঠেছে, এই পরিপ্রেক্ষিতে মহাসম্ভূতি ধর্ম গুরু শ্রী শ্রী আনন্দ মূর্ত্তিজী, যিনি মহান দার্শনিক ও যুগান্তকারী 'মাইক্রোবাইটাম' তত্ত্বের উদ্ভাবক শ্রী প্রভাত রঞ্জন সরকার নামেও সমধিক  পরিচিত, তাঁর তত্ত্বের ভিত্তিতে করোনা বাইরাসের মত মারাত্মক রোগজীবানুর হাত থেকে বাঁচার উপায় কী -এর উপর কিছু আলোকপাত করছি।

বাইরাস আক্রান্ত গণতন্ত্র

আচার্য সত্যশিবানন্দ অবধূত

বিশ্বজুড়ে করোনা বাইরাসের আতঙ্কের মধ্যেই মধ্যপ্রদেশে কংগ্রেসের তরুণ ব্রিগেডের নেতা জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া ২২ জন বিধায়ক নিয়ে কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপি’তে  যোগ দিলেন৷ ফলে এই সম্পাদকীয়  লেখা পর্যন্ত যে পরিস্থিতি তাতে দেড় বছরের মধ্যেই কমলনাথ সরকারের নেতৃত্বাধীন কংগ্রেস সরকারের পতনের সম্ভাবনা ও এখানে পুনরায় বিজেপির ক্ষমতায় আসার সম্ভাবনা প্রবল৷

করোনা বাইরাস আতঙ্কের প্রেক্ষীতে মাইক্রোবাইটাম তত্ত্ব

আচার্য সত্যশিবানন্দ অবধূত

করোনা বাইরাস (corona virus)  আজ সারা পৃথিবীর আতঙ্ক হয়ে উঠেছে৷ গত  ডিসেম্বরের শেষের দিকে চীনের উহান প্রদেশে এই করোনা ভাইরাসের আক্রমণ শুরু হয়৷  এখান থেকে  চীনের অন্যত্র ও পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে এইরোগ ( চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় কার্ভড-১৯) ছড়িয়ে পড়েছে৷ এই সম্পাদকীয় লেখা পর্যন্ত  চীনে এই রোগে আক্রান্ত হয়ে ৩০৪২ জনের মৃত্যু হয়েছে, এখনও পর্যন্ত এই রোগে আক্রান্ত ৮০,৫৫২৷ দক্ষিণ কোরিয়ায় মৃত ২৮ জন, আক্রান্ত  ৬,২৮৪ জন, ইতালিতে  মৃত ১০৭ জন, আক্রান্ত ৩,৫৫৮, ইরানে মৃত ১৩৭জন, আক্রান্ত ১,৭৪৭, ফ্রান্সে মৃত ৭, আক্রান্ত ৪২৭৷ এমনিভাবে বহু দেশেই  এই রোগ অতি দ্রুত ছড়িয়ে  পড়েছে৷ ভারতেও এ পর্যন্ত ৬১ জনের আক্রান্তের সংব