খেলার খবর

ফের কমলওয়েলথ-এ প্যারা জুডোয় ব্রোঞ্জ জয় এক প্রতিবন্ধী বঙ্গসন্তান বুদ্ধদেবের

প্রথম বিদেশ সফর  আর এই সফরেই বাজিমাৎ বুদ্ধদেবের৷ ছোটো থেকেই দারিদ্রতা ও শারীরিক প্রতিবন্ধকতার লড়তে লড়তে কখন যে বুদ্ধদেব কমনওয়েলথ জিতে গেছে তা সে নিজেও বুঝতে পারে নি৷ ইংল্যাণ্ডে অনুষ্ঠিত  প্যারা জুডো  কমনওয়েলথ গেমসে ব্রোঞ্জ পেয়েছেন৷  প্যারা জুডো  প্রতিযোগিতার আসর বসেছিল বার্মিংহামের ওয়ালসালে ৷ ভারত থেকে ২০ জলের দল যোগ  দিয়েছিল৷ বুদ্ধদেব ৬০ কিলোগ্রামের কম ওজনের বিভাগে যোগ দিয়েছিলেন৷  গত ২৬শে সেপ্ঢেম্বরে  তার প্রথম লড়াই ছিল  আলবেনিয়ার খেলোয়াড়ের সঙ্গে৷ আড়াই মিনিটের মধ্যেই বুদ্ধদেব জয়ী হন৷ প্রতিপক্ষদের মধ্যে স্কটল্যাণ্ড , দক্ষিণ আফ্রিকার  প্রতিনিধিরাও ছিলেন৷ যদিও কোয়ার্টার ফাইনালে প্রতিপক্ষ ছিলে

চার পদকের শিরোপা থাকা সত্ত্বেও বাঙালী সন্তানের অন্ন সংকট

পুষ্টিকর খাবার জোগানোর জোগাড় করতে পারছেন না বাবা-মা৷ ফলে, প্রত্যেক দিন পাঁচ-ছয়ঘন্টার প্রশিক্ষণের পর এশীয় বয়সভিত্তিক সাঁতারে চার-চারটি পদক জেতা সাঁতারুর জোটে শুধুই রুটি-তরকারি৷ বাংলার কোথাও আন্তর্জাতিক সুইমিং পুলে সাঁতার  কাটার সুযোগ নেই৷ বালি গ্রামাঞ্চলের  ঘোলা জলে সাঁতার কাটতে গিয়ে  সমস্যা হচ্ছে প্রতিনিয়ত৷ ঠিকমতো এগোনো যায় না, সেখানে অনুশীলন করেই দেশের  সেরা হয়েছেন জুনিয়র বিভাগে৷ সামনে কোনও  জাতীয় শিবির নেই৷ ফলে আন্তর্জাতিক কোচের কাছে শিক্ষা নেওয়া ও সুইমিং পুলে প্রশিক্ষণের সুযোগ নেই৷  রাজ্য সংস্থার কর্তাদের  কাছে সাহায্য চেয়েও পাননি৷ ফলে চূড়ান্ত উপেক্ষা আর অবহেলার জেরে  শেষ হয়ে যেতে বসেছে

ফুটবলে বাঙালী ক্রমশ পিছিয়ে পড়ছে কেন?

বাঙলায় বাঙালীর অস্তিত্ব বিভিন্ন ক্ষেত্রে আজ বিপন্ন৷ খেলাধূলার ক্ষেত্রে ফুটবলে বলকাতার দলগুলি একসময় সারা ভারতে তো বটেই পৃথিবীতে এক বিশেষ স্থান করে নিয়েছিল৷ ভারতীয় ফুটবলের প্রতিনিধিত্ব করত একঝাঁক বাঙালী তরুণ৷ ফুটবল পাগল বাঙালী আজ প্রতি পদে পদে বাঙলার ফুটবলের স্বর্ণযুগের স্মৃতিচারণ করে সান্ত্বনা পাওয়ার চেষ্টা করছে৷ সেই গোষ্ঠ পাল, চুনী গোস্বামী, প্রদীপ ব্যানাজী, সুভাষ ভৌমিক, অমল দত্ত প্রমুখ ফুটবলের রথী-মহারথীদের কীর্তির কাছে বর্তমান বাঙালী ফুটবলারদের কৃতিত্ব যেন হাতির সামনে সামান্য মুষিকের লাফালাফি বলেই মনে হচ্ছে৷

ঘরের মাঠে ব্রাডম্যানের থেকেও গড় ভাল রোহিতের

টেস্টে ওপেনার হিসেবে সব প্রত্যাশা ছাপিয়ে গিয়েছেন রোহিত শর্মা৷ চার ইনিংসে দুই সেঞ্চুরি, একটি ডাবল সেঞ্চুরি৷ রাঁচীতে তৃতীয় টেস্টের দ্বিতীয় দিন ২১২ করেছেন তিনি৷ যা চলতি টেস্টে  চালকের আসনে বসিয়ে রেখে ছিল টিম ইন্ডিয়াকে৷

একইসঙ্গে ঘরের মাঠে দশটা টেষ্টে  বেশি ইনিংস খেলার ভিত্তিতে গড়েছেন অনন্য একরেকর্ড৷ সদ্য ২১২ রানের সুবাদে দেশের মাঠে টেষ্টে রোহিতের গড় এখন  ৯৯.৮৪৷ বিশ্বের তাবড় সব ব্যাটসম্যান তো বটেই, যা এমনকি ডন ব্র্যাডম্যানের চেয়েও বেশি৷ ঘরের মাঠে কিংবদন্তি অজির গড় ৯৮.২২৷ রোহিত টপকে গিয়েছেন তাঁকেও৷ যা বিরল কৃতিত্ব৷

ঋদ্ধিমান প্রমাণ করলেন তিনিই বর্তমানে ভারতের  শ্রেষ্ঠ উইকেটকীপার

ক্রিকেটে উইকেটের পেছনে যে ব্যক্তি প্যাড, গ্লাভস্ পরে কিপিং করেন তিনি কিন্তু নিজের দলের সমস্ত খেলোয়াড়কে এমন এক জায়গায় দাঁড়িয়ে দেখতে পান যেখান থেকে খেলার গতিবিধি বুঝে দলকে পরামর্শ দিতে পারেন খেলাটাকে নিজেদের অনুকুলে নিয়ে আসার জন্যে৷ সেই কারণে বলা ক্রিকেটের উইকেট কীপার বিপক্ষের ব্যাটসম্যানের ত্রুটি-বিচ্যুতি তথা দুর্বলতা বুঝে বোলার ও ফিল্ডারদের প্রয়োজনীয় নির্দেশ দিতে পারেন৷  আর বিশেষ করে বোলারকে উরুত্বপূর্ণ নির্দেশটি পাঠাতে পারেন মিঃ উইকেটকীপার৷ সেই কারণে প্রখর উপস্থিত বুদ্ধি প্রয়োগ প্রয়োগ করতে হয় উইকেটকিপারকে৷ এই কাজটি দলের অন্যান্যদের থেকে কিছুটা হলেও শক্ত৷ সেই কাজে ভারতীয়দের মধ্যে সৈয়দ কিরমা

ক্রিকেট জগতে স্বনামধন্য রিচার্ডসের প্রতি  কৃতজ্ঞতা জানান ব্রায়ান লারা

অণুপ্রাণিত করেছিলেন কিংবদন্তি ভিভ রিচার্ডস আর সেই কারণেই তিনি ব্রায়ান লারা হতে পেরেছিলেন৷ জানিয়ে দিলেন বিশ্ব ক্রিকেট জগতের এক স্বনামধন্য প্রাক্তন প্রতিভা ব্রায়ান লারা৷  অ্যান্টিগোতে ভিভ রিচার্ডসের মূর্ত্তির সামনে দাঁড়িয়ে নিজের ছবি তুলতে গিয়ে সংবাদ মাধ্যমকে লারা জানান ‘‘ওনাকে  বাস্তবে এর থেকে আর সুন্দর দেখতে ছিল, এই মানুষটির অনুপ্রেরণাতেই আজ আমি ক্রিকেট জগতের এক স্বনামধন্য নাম হতে পেরেছি৷ বছর ৬৭ বয়সের এই রিচার্ডসকে বিশ্বের অন্যতম  সেরা ব্যাটসম্যান বলে অনেকেই জানেন৷  আশির দশকে তিনিই ছিলেন অপ্রতিরোধ্য ও দাপুটে সদস্য৷ ১২১ টি টেস্টে ৮৫৪০ রান করেছিলেন রিচার্ডস৷ একদিনের ক্রিকেটে ৪৭ গড়ে করেছিলেন ৬৭

দক্ষ প্রশাসক হবেন  প্রেসিডেণ্ট হবেন সৌরভ

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রেসিডেন্ট নির্র্বচিত হন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়৷ এরপরই তিনি সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন যে, স্বার্থ সংঘাতের আইনে তিনি পরিবর্তন করবেন৷ আর এই  নিয়ম নিয়ে যথাযথ ভাবনা চিন্তা করবেন অনেক জায়গায়৷ নোতুন বোর্ড প্রেসিডেন্টের  কথায়  ইঙ্গিত ছিল, স্বার্থ সংঘাতের  এই নিয়ম নিয়ে তিনি সন্তুষ্ট নন৷ গত মঙ্গলবার জানা গেছে, সুপ্রিমকোর্টের নিযুক্ত  প্রশাসকদের  কমিটি  (সিওএ)  সুপারিশ করেছে, স্বার্থ সংঘাত নিয়মে পরিবর্তন আনার৷ সেই পরিবর্তন  যদি করা হয় তাহলে, প্রাক্তন ক্রিকেটারদের বিভিন্ন  ভূমিকায় দেখা যেতে পারে৷

পর্বতশৃঙ্গ জয়ে করলেন বাঙলার চার দৃষ্টিহীন সন্তান

পর্বতশৃঙ্গে পৌঁছানো খুবই কঠিনতম কাজ, যেখানে সাধারণ মানুষের জীবন সংশয় হয়ে যায় ও অনেকক্ষেত্রে দেখা গেছে মৃত্যুও   ঘটে গেছে৷ এমন মারনাত্মক পর্বতশৃঙ্গে পৌঁছোনো  ট্রেন পর্বতারোহী অর্থাৎ যারা এই সমস্ত ব্যাপারে পটু তাদেরই নানান দুর্ঘটনার সম্মুখীন হতে হয়৷ এবার এখন যদি বলা হয় এই পর্বতশৃঙ্গ চারজন দৃষ্টিহীন ও আংশিক দৃষ্টিহীন চার বাঙালী সন্তান জয় করেছেন, সেটা বিশ্বাস করাটা অসম্ভবই মনে হবে৷ শৃঙ্গ জয়ের  নজির গড়ল বেহালার স্বেচ্ছাসেবী সংঘটন ‘ভয়েস অব ওয়ার্ল্ড-এর উদ্যোগে গত ১৭ই সেপ্ঢেম্বর গঙ্গোত্রী থেকে  ১৪ জন যাত্রা শুরু করেন  এরপর শেষের দিকে মাত্র ৬ জনই পৌঁছোতে পারে রুদ্রগয়ার শিখরে৷ এছাড়া এদের সঙ্গে দুজন 

ঋসভ কি ধোনির যোগ্য উত্তরসূরি  হতে  পারবেন ?

বহুদিন থেকে ভারতীয় ক্রিকেট মহলে একটি প্রশ্ণ সকলের মুখে মুখে ঘুরছে ধোনি  অবসর কবে ও তার জায়গায় কাপ উত্তরসূরি কে হবে?