রাষ্ট্রসঙ্ঘে স্বীকৃতি পেল বাংলা ভাষা

গত ১০ই জুন রাষ্ট্র সংঙ্ঘের ৭৬তম সাধারণ অধিবেশনে বহুভাষাবাদের পক্ষে অ্যান্ডোরা ও কলম্বিয়ার আনা প্রস্তাব গৃহীত হয়৷ গৃহী

নিজস্ব সংবাদদাতা

আনন্দমার্গ স্কুলের প্রাক্তন ছাত্রের যুগান্তকারী আবিষ্কার

পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলার ছেলে সাবির হোসেন এক বিশেষ ধরণের পাউডার আবিষ্কার করেছেন যা ব্যবহারে খুবই অল্প সময়ের মধ্যে ক্ষতস্থানের রক্তপাত বন্ধ হয়ে যাবে৷ পি.এন.এ.

সুপ্রিম কোর্টে সাতে নেই বাংলা প্রতিবাদে সরব ‘আমরা বাঙালী’

সুপ্রিম কোর্ট তার রায় প্রকাশের মাধ্যম হিসাবে হিন্দী, ইংরাজীর সাথে আরও পাঁচটি ভাষাকে বেছে নিয়েছে৷ তার মধ্যে উড়িয়া, অসমিয়া থাকলেও বাংলা ভাষার স্থান হয়নি নিজস্ব সংবাদদাতা

বিশ্ব পরিবেশ দিবসে আবেদন

‘‘মানুষ যেন মানুষের তরে সবকিছু করে যায়৷

               একথাও যেন মনে রাখে পশুপাখী তার পর নয়

নিজস্ব সংবাদদাতা

গোর্খাল্যাণ্ডের মত বিচ্ছিন্নতাবাদী হঠকারী আন্দোলন চিরকালের মত বন্ধ হোক

প্রভাত খাঁ

সবার ওপরে পশ্চিমবঙ্গের উন্নয়ন৷ তার জন্যে চাই শান্তি  শৃঙ্খলা ও আইনের শাসন৷ অতীতের কথা বলে সময় নষ্ট করাটা ভালো নয়৷  বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী পাহাড়ে শান্তি-শৃঙ্খলা ফেরাতে তো একধাপ এগিয়ে দার্জিলিংয়ে জিটিএ করেছিলেন প্রায় পাঁচ বছর আগে৷ পাঁচ বছরে দার্জিলিংয়ের উন্নতিকল্পে হাজার হাজার কোটি কোটি টাকা দিয়েছেন জিটিএ-কে৷ একমাস পরে পাঁচ বছর পূর্ণ হবে৷ বিমল গুরুংয়ের নতুন দল জনমুক্তি মোর্চা কোথায় কত টাকা খরচ করেছেন, তার হিসেব আজ পর্যন্ত দেননি৷ মুখ্যমন্ত্রী দার্জিলিংয়ে গেছেন মন্ত্রী পরিষদের সভা করতে৷ রাজ্যের সার্বিক উন্নয়নের পর্যালোচনা করতে৷ এটাকে গ্রীষ্মকাল অধিবেশন বলা যায়৷ আগে সেই অধিবেশন হয়েছিল সিদ্ধার্থ শঙ

আমরা যোগ সাধনা করব কেন?

আনন্দমার্গী

একটি ফুলের কুঁড়ি থেকে সুন্দর একটি ফুল ফুটে ওঠে৷ ফুলের সৌন্দর্য নির্ভর করে তার সমস্ত পাপড়ি–গুলির সম্যক বিকাশের ওপর৷ মনে করা যাক, একটি ফুলের তিনটি পাপড়ি৷ এই তিনটি পাপড়ি যদি ঠিকমত ফুটে ওঠে, তবে ফুলটিকে সুন্দর দেখায়৷ তেমনি আমাদের জীবনপুষ্পের তিনটি পাপড়ি–দেহ, মন ও আত্মা৷ এই তিনেব যদি সুষ্ঠু বিকাশ না হয়, তাকে জীবনের সুষ্ঠু বিকাশ বলা চলে না বা তাকে জীবনের প্রকৃত উন্নতি বলা যায় না৷ আর তাই জীবনের যথার্থ উন্নতির জন্যে তথা জীবনকে যথার্থ আনন্দময় করে গড়ে তুলতে হলে দৈহিক, মানসিক ও আত্মিক–তিনেরই উন্নতি একান্ত প্রয়োজন৷ জীবনের এই ত্রিস্তরীয় উন্নতি সম্পর্কে–আমাদের যথার্থভাবে সচেতন হতে হবে৷ সেজন্যেই আনন্দমার্

শোষিত বাঙলা---বঞ্চিত বাংলা ও বাঙালী (২)

তারাপদ বিশ্বাস

(পূর্বে প্রকাশিতের পর)

১৬) কেন্দ্রীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তথা কেন্দ্রীয় সরকারী দপ্তর সমূহে, ত্রি-ভাষা সূত্র মেনে প্রতিটি সরকারী কাজে হিন্দি ও ইংরাজীর পাশাপাশি প্রাদেশিক ভাষাকেও সমান গুরুত্ব দেওয়াটাই আইনসিদ্ধ৷ ১৯৮৬ সালের জাতীয় শিক্ষানীতি অনুযায়ী ত্রি-ভাষা সূত্র পশ্চিমবঙ্গে অবস্থিত কেন্দ্রীয় বিদ্যালয়, জওহর নবোদয় বিদ্যালয়, সৈনিক সূকল  এ্যটোমিক এনার্জী স্কুল, রেল ও অন্যান্য দপ্তর পরিচালিত বিদ্যালয়ে মানা হয় না৷

গোর্খাল্যাণ্ড প্রসঙ্গে

গোর্খাল্যাণ্ড আন্দোলন যা পশ্চিমক্ষঙ্গের উত্তরাংশের কয়েকটি জেলা দাবী করছে, তা আজ  এক চরম অবস্থায় পৌঁছেছে৷ গোর্খা, যারা রাজ্যের বাইরে থেকে এসেছে, তারা ভারতের নাগরিকত্বের সুযোগ নিয়ে এখন একটি পৃথক রাজ্য দাবী করছে৷ তারা নিয়মিতভাবে আন্দোলন করছে, হরতাল ডাকছে, জাতীয় সম্পদকে লুণ্ঠন করছে ও জ্বালিয়ে দিচ্ছে, মানুষকে হত্যা করছে, আর এইভাবে তারা সেখানকার আইন–শৃঙ্খলা ব্যবস্থাকে অচল অবস্থায় নিয়ে এসেছে৷ আসলে ‘চোখের বদলে চোখ’ এই পৈশাচিক আহ্বানে আজ দেশের ওই স্থান রাজনৈতিক শ্লোগানে মুখরিত৷ তাই পশ্চিমক্ষঙ্গের দার্জিলিং জেলায় আইনের শাসনের প্রায় কোনো অস্তিত্বই  নেই৷

কেন্দ্রের নোতুন জিএসটি  বিল  রাজ্যের অধিকার খর্ব  যেন না করে

প্রভাত খাঁ

আগামী মাসের গোড়া থেকে ভারতে নাকি জি এস টি চালু  হতে চলেছে৷ কেন্দ্রের দাবী সব জট কেটে গেছে৷ কিন্তু এতে প:বঙ্গ রাজ্য সরকারের কোন মতামত নাকি গ্রহণ করা  হয়নি৷ তাই মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য  এতো তাড়াতাড়ি করে কেন্দ্রের অভিন্ন পণ্য ও পরিষেবা কর চালু করা সঠিক হচ্ছে না৷ তিনি তাঁর বিস্তারিত বক্তব্য কেন্দ্রীয় সরকারের দফতরে পেশ করবেন৷

বাংলাদেশে গোঁড়া ইসলাম পন্থীরা আওয়ামী লীগে ঢুকছে যেটা জোটের বামেরা মানতে পারছে না

মুশাফির

এই  প্রতিবেদনটি লিখতে গিয়ে প্রথমেই মুসাফিরের স্মরণে এলো মহান বিপ্লবী ও বিশ্বের অন্যতম শ্রেষ্ঠ দেশপ্রেমিক নেতাজী সুভাষচন্দ্রের ধর্মমত ও রাজনীতি সম্বন্ধে মতামত৷ তিনি জাপানে পাড়ি দেবার সময় একজন মুসলমান সঙ্গীকে আলোচনা প্রসঙ্গে বলেন যে, ধর্মমতকে রাজনীতির সঙ্গে জড়িয়ে ফেলাটা ঠিক নয়৷

সদগুরুর শক্তি সম্পাত ও মাইক্রোবাইটাম

শ্রীসমরেন্দ্রনাথ ভৌমিক

আজকের প্রবন্ধের আলোচনার বিষয় হ’ল---সদগুরু কীভাবে মানুষের শরীরে মাইক্রোবাইটামের সাহায্যে শক্তি সম্পাত করেন৷

পজেটিভ মাইক্রোবাইটাম প্রয়োগ করেন পরমপুরুষ (সদগুরু) কিন্তু নেগেটিভ মাইক্রোবাইটাম সাধারণতঃ প্রাকৃতিক শক্তির দ্বারাই ছড়ায়৷ সৎসঙ্গের মাধ্যমেও পজেটিভ মাইক্রোবাইটার উপস্থিতি ঘটে৷ পরমপুরুষ তথা সদগুরুর বিশেষ কৃপায় মানুষের শুভবুদ্ধির বা বৃত্তির ক্রিয়াশীলতা ক্রমশঃ বাড়ানো যায় অথবা ক’মে যাওয়া শুভবৃত্তিগুলোর ক্রিয়াশীলতাকে বাড়ানো যেতে পারে৷

ধর্ম মহাসম্মেলনের পুরোধা প্রমুখের সংক্ষিপ্ত প্রবচন

আচার্য মােহনানন্দ অবধূত

 আধ্যাত্মিক সাধনার ক্ষেত্রে মানুষের মনে যে ধরণের জিজ্ঞাসা আসে তাদের বলা হয় পরিপ্রশ্ণ৷ অধ্যাত্ম জীবনের পরিপ্রশ্ণগুলির মধ্যে বিশেষ পরিপ্রশ্ণ হলো যে পরমপুরুষ  কাছেই আছেন  অথচ তাকে পাচ্ছি না কেন? আর তাকে পেতে গেলে সাধনাটাই কিরূপ ভাবে করতে হবে?