দেশে দেশে আনন্দমার্গ

ত্রিপুরায় আনন্দমার্গের ধর্মীয় অনুষ্ঠান

গত ১৪ই ফেব্রুয়ারী ত্রিপুরা রাজ্যের পানিসাগর শহরে স্থানীয় আনন্দমার্গীদের উদ্যোগে মহাদেব মন্দিরে শিবতত্ত্ব ও যোগ বিষয়ে আলোচনা করেন আচার্য কাশীশ্বরানন্দ অবধূত৷ মানব সভ্যতার জনক শিব৷ আদিপিতা ভগবান শিবের বহু নাম --- আদিদেব, বৈদ্যনাথ, নটরাজ, পঞ্চানন, ত্রিলোচন--- শিবের এই নামগুলি তাঁর বিভিন্ন কর্ম ও গুণের পরিচিতি বহন করে৷ কল্যাণময় শিবের ছিল অনন্ত ঐশ্বর্য৷ তাই তার নাম বিভূতিনাথ৷ পরম করুণাময় শিব, মানুষের সার্বিক কল্যাণের উদ্দেশ্যেই আজ থেকে প্রায় ৭ হাজার বছর পূর্বে যোগবিদ্যা এই পৃথিবীতে প্রচার করেছিলেন৷ আচার্য কাশীশ্বরানন্দ অবধূত বলেন, শিব প্রবর্তিত এই যোগবিদ্যাকে ভগবান শ্রীকৃষ্ণ আরও সমৃদ্ধ করেছিলেন৷

আনন্দনগরে বসন্তোৎসব

গত ২১শে মার্চ আনন্দনগরের দধীচি হোষ্টেলে  আনন্দমার্গের চর্যাচর্যের বিধান অনুসারে বসন্তোৎসব অনুষ্ঠিত হয়৷ এই উপলক্ষ্যে প্রথমে  প্রভাতসঙ্গীত, এরপর ৩ ঘন্টাব্যাপী অখণ্ড কীর্ত্তন ও মিলিত সাধনা  অনুষ্ঠিত হয় ও চার শতাধিক আনন্দমার্গী এই উৎসবে যোগ দেন৷

উৎসবে প্রভাত সঙ্গীত পরিবেশন ও অখণ্ডকীর্ত্তন পরিচালনায় ছিলেন আচার্য শুভপ্রসন্নানন্দ অবধূত, আচার্য সুবোধানন্দ অবধূত ও আচার্য শিবপ্রেমানন্দ অবধূত, বসন্তোৎসবের  মার্গগুরু শ্রীশ্রী আনন্দমূর্ত্তিজীর প্রবচন পাঠ করে শোনান আচার্য দেবাত্মানন্দ অবধূত৷  বসন্তোৎসব  ও দোলযাত্রা উৎসবের তাৎপর্য ব্যাখ্যা করেন আচার্য মোহনানন্দ অবধূত ও আচার্য মুক্তানন্দ অবধূত৷

আনন্দমার্গ স্কুলের সুবর্ণজয়ন্তী উৎসব

গত ১১ থেকে ১৩ই মার্চ পর্যন্ত মেদিনীপুর জেলার খড়িপাড়া আনন্দমার্গ স্কুলের ৫০ বৎসর পূর্ত্তি (সুবর্ণজয়ন্তী) উপলক্ষ্যে ১১ তারিখ ১২ ঘণ্টার অখণ্ড বাবা নাম কেবলম্ কীর্ত্তন অনুষ্ঠিত হয়৷ দ্বিতীয় দিনে স্কুলের প্রাক্তন ও বর্তমান ছাত্রছাত্রাদের নিয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়৷ উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আনন্দমার্গ প্রচারক সংঘের প্রবীণ সন্ন্যাসী আচার্য বিকাশানন্দ অবধূত, আচার্য বোধিসত্ত্বানন্দ অবধূত, মেদিনীপুরের ডি.এস৷ আচার্য নিত্যতীর্থানন্দ অবধূত ও স্থানীয় বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ্গণ৷  স্কুলের প্রিন্সিপাল আচার্য ভুবনেশ্বরানন্দ অবধূত ১৩ই মার্চ সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করেন৷

পুইনান আনন্দমার্গ স্কুলের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

গত ১৭ই মার্চ হুগলী জেলার পোলবা ব্লকের অন্তর্গত পুইনান আনন্দমার্গ প্রাইমারী স্কুলের বার্ষিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হ’ল৷ এই উপলক্ষ্যে স্কুলের ছাত্র-ছাত্রারা স্কুলের অভিভাবকবৃন্দ গ্রামবাসীদের একটি সুন্দর সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা উপহার দিল৷ ওই দিন সন্ধ্যায় প্রকৃতি কিছুটা বিমুখ ছিল৷ কিন্তু তাকে সম্পূর্ণ উপেক্ষা করে দর্শকবৃন্দ শেষ পর্যন্ত উপস্থিত থেকে শিশুদের পরিবেশিত অনুষ্ঠান উপভোগ করেন ও স্কুলের শিশুদের উৎসাহ দান করেন৷ অনুষ্ঠানে বিভিন্ন বাংলা ছড়া, ইংরাজী রাইমস, রবীন্দ্র সঙ্গীত ও প্রভাতরঞ্জন সরকার রচিত ও সুরারোপিত প্রভাত সঙ্গীত ও প্রভাত সঙ্গীত অবলম্বনে সমর্পিতা মিস্ত্রীর নির্দেশনায় নৃত্য পরিবেশন

অখণ্ড কীর্ত্তন

গত ৪ঠা মার্চ আমতা ব্লকের উদ্যোগে সমরেন্দ্রনাথ ভৌমিকের বাসভবনে তিন ঘণ্টা বাবা নাম কেবলম অখণ্ড মহাসংকীর্ত্তন অনুষ্ঠিত হয়৷ অনুষ্ঠানে প্রভাত সঙ্গীত ও কীর্ত্তনের অংশগ্রহণ করেন আনন্দ চিরমধুরা আচার্যা, সুপ্রিয়া ভৌমিক, শুভ্র ভৌমিক ও অনুষ্ঠানের শেসে কীর্ত্তনের মাহাত্ম্য সম্পর্কে বক্তব্য রাখেন আচার্য কাশীশ্বরানন্দ াবধূত৷ অনুষ্ঠানের শেষে সুস্বাদু নিরামিশ ভোজে সকলকে আপ্যায়িত করা হয়৷

বসন্তোৎসব

গত ২১শে মার্চ হাওড়া জেলার পাঁচলা ব্লকের রাণীহাটি আশ্রমে বসন্ত উৎসব পালিত হয়৷ ও বিকাল ৪টা থেকে ৬টা পর্যন্ত বাবা নাম কেবলম কীর্ত্তন পরিক্রমা হয়৷ অনুষ্ঠানের নেতৃত্বের পুরোভাগে ছিলেন সুশান্ত শীল, আচার্য নিত্যসুন্দর ব্রহ্মচারী, মহাব্রত দেব ও সুব্রত সাহা৷

মেডিকেল ক্যাম্প

গত ৩০শে মার্চ হাওড়া জেলার ডোমজুর ব্লকের রুদ্রপুরে একটি মেডিকেল ক্যাম্প হয়৷ উক্ত ক্যাম্পে ডাক্তার হিসেবে ছিলেন ডাঃ চাঁদমোহন পাল, ডা সমীর সামন্ত, ডাঃ বিপ্লব শীল ও ডাঃ গৌতম দাস৷ সারা দিন ব্যাপী প্রায় ২৫০-এর বেশী অসুস্থ রোগীদের চিকিৎসা করে বিনা পয়সায় ওষুধও দেওয়া হয়৷ সহযোগিতায় ছিলেন আনন্দ চিরমধুরা আচার্যা, মহাব্রত দেব, অমিয় পাত্র ও সুব্রত সাহা৷

মার্গগুরুদেবের শুভ পদার্পণ দিবস

গত ১৫ই মার্চ হাওড়ার রামরাজাতলায় জগদ্গুরু শ্রীশ্রীআনন্দমূর্ত্তিজী শুভ পদার্পণ দিবস উদয়রপন করা হয়৷ উক্ত অনুষ্ঠানে প্রভাত সঙ্গীত ও কীর্ত্তনে কণ্ঠ মেলান সুপ্রিয়া ভৌমিক, গুণাতীতা দত্ত, বিপ্লবী শীল, শুভ্র ভৌমিক, শঙ্কর সরকার৷ উক্ত অনুষ্ঠানে সুব্রত সাহা স্বাধ্যায় করেন৷ ‘প্রকৃত গুরু কে’ বাবা ১৯৮১ সালের ১৫ই মার্চ যে প্রবচনটি দিয়েছিলেন স্মৃতীচারণ করে গৌতম দত্ত ও তপন ভৌমিক৷ সহযোগিতায় ছিলেন মহাব্রত দেব, গোপা শীল ও শ্যামসুন্দর দাস৷

মুর্শিদাবাদ জেলার নবীপুর আনন্দমার্গ স্কুলে কৃষ্ণনগর সেকেণ্ড ডায়োসিস সেমিনার

অধ্যক্ষ্যা অবধূতিকা আনন্দ তপারতি আচার্যার উদ্যোগে ও বিদ্যালয়ের শিক্ষিকাবৃন্দের ঐকান্তিক সহযোগিতায় ৮,৯, ১০ই মার্চ মুর্শিদাবাদ জেলার নবীপুর আনন্দমার্গ স্কুলে সাড়ম্বরে কৃষ্ণনগর ডায়োসিসের সেকেণ্ড ডায়োসিস সেমিনার অনুষ্ঠিত হ’ল৷ ৮ই মার্চ মানবমুক্তির মহামন্ত্র ‘বাবা নাম কেবলম্’ অখণ্ড কীর্ত্তনের (তিন ঘণ্টা) মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়৷ শতাধিক আনন্দমার্গ প্রচারক সংঘের সদস্য-সদস্যা  সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন৷ প্রধান প্রশিক্ষক হিসেবে উপস্থিত থেকে ‘যোগ ও তন্ত্র ও কেবলাভক্তি’ / ‘আনন্দমার্গ এক বিপ্লব’ এই দুটি বিষয়ের ওপর ক্লাস নেন আনন্দমার্গ প্রচারক সংঘের প্রবীণ সন্ন্যাসী তথা কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আচার্য

টাটুয়াড়াতে আনন্দমার্গের সেমিনার

গত ৩১শে মার্চ টাটুয়াড়াতে  আনন্দমার্গের  ১দিনের সেমিনারের আয়োজন  করা হয়৷ এতে প্রায় ৫০ জন যোগদান করেন৷ সেমিনারে আনন্দমার্গের  দর্শন ও আদর্শের  বৈশিষ্ট্যের ওপর আলোকপাত  করেন আচার্য মুক্তানন্দ অবধূত, আচার্য মোহনানন্দ অবধূত ও আচার্য শিবপ্রেমানন্দ অবধূত৷