খেলার খবর

বিশ্বকাপের আসরে এত চোট-আঘাত কেন?

বিশ্বকাপের মত বড়ো আসরে, যেখানে বিশ্বের সেরা দলগুলি পরস্পরের প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে সেখানে প্রতিটি খেলোয়াড়েরই একশ’ শতাংশ সুস্থ থাকতে হবে৷ মনে রাখতে হবে কোনও একজনের ওপর একটি দলের সাফল্য নির্ভর করবে না, তেমনি কোন একটি একজন খেলোয়াড়ের অসুস্থতা বা খেলার মধ্যে ভুল করাটা সেই দলের কাছে বিপজ্জনক হয়ে উঠতে পারে৷ উদাহরণ হিসেবে বলা যায় একটি ক্যাচ মিস মানে ম্যাচ মিস হতে পারে, একটি রান আউট বা একটি স্ট্যাম্পের সুযোগ হাতছাড়া হলে দল বিপদে পড়তে পারে এমনকি সংশ্লিষ্ট দল পরাজিতও হতে পারে৷ তাই এই মহারণে একটি রান বাঁচানোর জন্যে শরীরকে ছঁুড়ে দিচ্ছেন খেলোয়াড়রা৷ তাই ক্রিকেটে এখন সেই সকল খেলোয়াড়েরাই সাফল্য পাবেন যাঁরা শ

জমে উঠছে বিশ্বকাপ ২০১৯

বিশ্বকাপে এই প্রথম রাউণ্ড রবিন লীগ পদ্ধতিতে প্রথম পর্যায়ের ম্যাচ গুলি হচ্ছে৷ উদ্দেশ্য ধারাবাহিকভাবে ভাল খেলে চ্যাম্পিয়ন হতে হবে৷ সেমিফাইনালের আগে প্রত্যেকটি দল একে অপরের বিরুদ্ধে লড়াই করবে৷ এবার দশটি দলের মধ্যে বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়নশীপ প্রতিযোগিতা হচ্ছে৷ আয়োজক দেশ ইংলণ্ড ছাড়া রয়েছে ভারত, অষ্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যাণ্ড, পািিকস্তান, ওয়েষ্ট ইণ্ডিজ, শ্রীলঙ্কা, বাঙলাদেশ, দক্ষিণ আফ্রিকা ও আফগানিস্তান৷ এখনও পর্যন্ত যে ক’টি ম্যাচ হয়েছে তার মধ্যে ভারত অষ্ট্রেলিয়ার ম্যাচটি যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ৷ এই ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে ভারত সাড়ে তিনশোর গণ্ডি অতিক্রম করে অষ্ট্রেলিয়াকে চাপে ফেলে৷ অষ্ট্রেলিয়াও অঙ্ক কষে ম্যাচ

ধাওয়ান না খেললেও ভারতের শক্তি কমবে না

নেথান কুল্টার-নাইলের একটা বল লাফিয়ে  উঠে তাঁর বাঁ-হাতের  গ্লাভসে আঘাত করেছিল৷ যার জেরে বুড়ো  আঙুল ফুলে যায় শিখর ধওয়নের৷ আঙুলের  যন্ত্রণা উপেক্ষা করে ম্যাচ জেতানো  সেঞ্চুরি করে যান তিনি৷ কিন্তু তাঁর চোট নিয়ে সমস্যায় ভারতীয় থিঙ্ক ট্যাঙ্কের৷ ধওয়নের আঙুলে স্ক্যান হবে৷ দেখা হবে, চোটের  অবস্থা কী? তার  পরে দলের ফিজিও প্যাটট্রিক ফারহার্ট ঠিক করবেন, পরের ম্যাচে ধওয়ন খেলতে  পারবেন কি না৷

স্পোর্টসম্যান স্পিরিট দেখিয়ে দর্শকদের হৃদয় জয় করে নিলেন বিরাট কোহলি

অষ্ট্রেলীয় খেলোয়াড়দের বিরুদ্ধে বল বিকৃতি, স্লেজিং ইত্যাদি নানা ধরণের অখেলোয়াড়চিত আচরণের অভিযোগ রয়েছে ক্রিকেট মহলে৷ বল বিকৃতির জন্য ডেভিড ওয়ার্নারকে এক বছরের জন্য নির্বাসনেও থাকতে হয়েছিল৷ সেই কারণে  ইংল্যাণ্ডে  বিশ্বকাপ খেলতে আসার পর স্মিথদের কোন কোন স্থানে নানা ধরণের  বিদ্রুপাত্মক মন্তব্যও শুনতে হয়েছে৷ আসলে মিডিয়া এখন এত সচল যে খুব তাড়াতাড়ি সমস্ত খুঁটিনাটি খবর পৌঁছে যায়  সকলের কাছে৷ তবে একটি ঘটনার জন্যে বার বার সংশ্লিষ্ট খেলোয়াড় বা দলকে নানাভাবে আক্রমণ করাটা বাঞ্ছনীয় নয়৷ শুধু খেলোয়াড়দের নিয়েই এই ক্রিকেট নয়৷ দর্শকরাও ক্রিকেটের অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ৷ দর্শক আছেন বলেই খেলোয়াড়রা প্রশংসিত হন বা সমালোচি

ইংল্যাণ্ডকে  বিশ্বকাপ খেতাবের স্বপ্ণ দেখাচ্ছেন জোফ্রা আর্চার৷

এত দ্রুত গতির বোলালের  বিরুদ্ধে কখনও তিনি ব্যাট করেননি ---জানালেন ইংল্যাণ্ডের অফস্পিনার মইন আলি৷ বোলারের বয়স মাত্র ২, নাম জোফ্রা আর্চার৷ জন্ম ব্রিজটাউনের বার্বেডোজে৷ কাউন্টি খেলেন সাসেক্সে৷ সবে মাত্র তিনি ইংল্যাণ্ডের দলে যোগদান করেছেন৷ আর মধ্যেই নজর কেড়েছেন সকলের৷ প্রশংসাও কুড়িয়েছেন৷  এটাই তাঁর জীবনের প্রথম বিশ্বকাপ৷ বলের গতি ঘন্টায় প্রায় ৯০ মাইল৷ বিশ্বকাপে দক্ষিণ  আফ্রিকার বিরুদ্ধে  প্রথম ৭ওভার বল করে ২৭ রানে ৩ উইকেট নেন৷ ম্যাচে তাঁর বলের গতি  ছিল ঘন্টায় প্রায় ৯৫ মাইল৷ তাঁর তিন শিকার  এডেন মার্করাম, দক্ষিণ আফ্রিকার  অধিনায়ক ফ্যাফ ডুপ্লেসি ও ফান  ডুসেন৷ তাঁর বাউন্সারে  আহত হয়ে মাঠ  ছাড়তে  ব

ভারত পাকিস্তান ম্যাচ নিয়ে শুরু এখন থেকেই শুরু কথার লড়াই

চলমান বিশ্বকাপের অনেকেই ভবিষ্যৎ বাণী করতে ব্যস্ত৷ কখনো ম্যাকলাম করছেন বাংলাদেশের দেশের আবার ক্ষমাও চাইছেন৷ আবার পাকিস্তানের প্রাক্তণ অধিনায়ক ইনজামাম উল হকও করছেন ভারতের ভবিষ্যৎ বাণী তার মতে  এই বিশ্বকাপে ভারত নাকি হারবে পাকিস্তানের কাছে দাবি করেছে তিনি৷

লারার মতে বিশ্বকাপে ভারত যথেষ্ট শক্তিশালী বিরাট তাঁর কাছে রান তোলার মেশিন

ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রাক্তন ক্রিকেটার  ব্রায়ান লারা বিরাট সম্পর্কে প্রশংসায় পঞ্চমুখ৷ তিনি বললেন--- ‘বিরাট একটা রান তোলার যন্ত্র’৷ বিরাটের খেলার ধরণ, তাঁর মানসিকতায় মুগ্দ হয়েছেন চার্লস ব্রায়ান লারা৷ লারা মনে করেন বিপক্ষকে চাপে রাখার খেলাটা শচীনের পর ভারতীয়দের মধ্যে বিরাটের মধ্যে বর্তমান৷ তাই দু’দলের মধ্যে ফারাক গড়ে দিতে পারেন বিরাট কোহলি৷ লারার মতে ৮০ বা ৯০ দশকে যে ক্রিকেটাররা বিশ্ব ক্রিকেটে শাসন করেছেন তাঁদের সঙ্গে বিরাটের তুলনা করা চলে৷ বিরাটের মানসিকতাটা অনেকটা কপিল দেবের মত৷ আর ব্যাটিং করার ধরণটা ঠিক শচীনের মত ধবংসাত্বক৷ সেই কারণে বিরাটের মাঠে থাকাটা দলের পক্ষে যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ৷ খেলার পর

মিউনিখ বিশ্বকাপে দূরন্ত লড়ে ফের স্বর্ণজয় ভারতের অপূর্বীর

ফের ভারতের ঘরে সোনা উপহার দিলেন জয়পুরের শুটার অপূর্বী চাণ্ডেলা৷ মিউনিখে গত রবিবারে ১০ মিটার এয়ার রাইফেলে সোনা জিতেছেন অপূর্বী৷

গত ফেব্রুয়ারি মাসেও তিনি নয়াদিল্লিতেও বিশ্বকাপে সোনা জিতেছিলেন ও বিশ্বরেকর্ডও করেছিলেন৷ অপূর্বীর প্রতিদ্বন্দ্বী চিনের ওয়াং লুয়ার সঙ্গে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর অপূর্বীর স্কোর হয় ২৫১৷ আর চিনা প্রতিদ্বন্দ্বী ওয়াং লুয়ার স্কোর ২৫০.৮৷ ফাইনালে আর ওয়াং পারলেন না স্কোর করতে তিনি ব্রোঞ্জ জয় করলেন ওপূর্বী সোনা৷

ওই যুদ্ধটা যে কতটা হাড্ডাহাডি হয়েছিল তা স্পষ্ট হয় নির্ণায়ক ধাপে৷ অপূর্বীর যখন স্কোর ১০.৪ আর তখন ওয়াং-এর স্কোর ছিল ১০.৩৷

ইংল্যাণ্ড অপেক্ষায় বিশ্বক্রিকেটের মহারণের জন্যl শুরু হয়ে গেছে বাকযুদ্ধ - কে কোন দলের ব্রহ্মাস্ত্র সেই নিয়ে চলছে নানান মতামত

আর মাত্র কয়েকটা দিনের অপেক্ষা ৷ তারপরই শুরু ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯  ক্রিকেটের মাঠে অর্থাৎ ইংল্যাণ্ডে শুরু হয়ে যাবে প্রতিমুহূর্তের হারজিতের লড়াই৷ সেটি আগে থেকে আন্দাজ করা অতটা সহজ হবে না, তবে প্রতিটি দলেই  এমন একজন থাকবেন যিনি এই বছরে দলের জন্য হয়ে উঠতে পারেন ‘এক্সফ্যাক্টর’৷

যাঁদের কথা এখন বলা হবে তারা বরাবরই এই খেতাব পাওয়ার মতো যোগ্য প্রদর্শন দিয়েছেন নিজের নিজের দলকে৷ এবার দেখার পালা এবছরে আসন্ন বিশ্বকাপে তারা কি করতে চলেছেন৷ এদের মধ্যে প্রথম যাঁর নাম এখন ক্রিকেট জগতে সবার মুখে মুখে তিনি আর কেউ নন আন্দ্রে রাসেল৷

ভারতীয় ফুটবলটিমের প্রাক্তন ফুটবলার নটরাজ প্রয়াত

প্রয়াত হলেন ফুটবল জগতের এক প্রবীণ ভারতীয় ফুটবলার দোরাইস্বামী নটরাজ৷ মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৮ বছর৷ ১৯৭০ সালে এশিয়াড় বোঞ্জজয়ী জয়ী ভারতীয় টিমের খেলোয়াড় ছিলেন তিনি৷ সেই  বছরেই তিনি মারডেকাতে জাতীয় টিমের সদস্য ছিলেন৷ সেখানেই ব্রোঞ্জ জিতেছিল ভারতীয় টিম৷ জাতীয় টিমের হয়ে তিনি ২৩টি ম্যাচে তিনটি গোল করেছিলেন তিনি৷ মাইশোরের হয়ে দুটো সন্তোষ ট্রফিও খেলেছিলেন৷ এছাড়া ১৯৭৫ সালে মহামেডানের হয়েও খেলেছিলেন তিনি৷ তাঁর প্রয়াণে জাতীয় ফুটবল জগৎ শোকাহত ও তাঁকে সকলে শ্রদ্ধাজ্ঞাপনও করা হয়৷