সুপ্রিম কোর্টে সাতে নেই বাংলা প্রতিবাদে সরব ‘আমরা বাঙালী’

সুপ্রিম কোর্ট তার রায় প্রকাশের মাধ্যম হিসাবে হিন্দী, ইংরাজীর সাথে আরও পাঁচটি ভাষাকে বেছে নিয়েছে৷ তার মধ্যে উড়িয়া, অসমিয়া থাকলেও বাংলা ভাষার স্থান হয়নি নিজস্ব সংবাদদাতা

বিশ্ব পরিবেশ দিবসে আবেদন

‘‘মানুষ যেন মানুষের তরে সবকিছু করে যায়৷

               একথাও যেন মনে রাখে পশুপাখী তার পর নয়

নিজস্ব সংবাদদাতা

বাঙলাদেশে আনন্দমার্গের ধর্মমহাসম্মেলন

গত ১৯, ২০, ২১শে এপ্রিল, ২০১৯ বাঙর্লদেশের দিনাজপুর জেলার অন্তর্গত মুকুন্দপুরে সি.ভি.এ ট্রেনিং সেণ্টারে আনন্দমার্গের ধর্মমহাসম্মেলন অনুষ্ঠিত হ’ল৷ এটি হ’ল বাঙলাদেশের বার্ষিক ধর্ম মহাসম্মেলন৷ এই… নিজস্ব সংবাদদাতা

সপ্তদশ দধীচি লহ প্রণাম  বিজন সেতুতে সপ্তদশ দধীচির উদ্দেশ্যে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন, মৌন মিছিল ও প্রতিবাদ সভা

সিপিএমের হার্মাদ বাহিনীর দ্বারা সংঘটিত এই পৈশাচিক হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে আয়োজিত মৌন মিছিল ও তৎপরে বিজন সেতুর ওপরে প্রতিবাদ-সভায় সামিল হন কলকাতার বহু বিশিষ্ট বুদ্ধিজীবী সহ হাজার হাজার আনন্দমার্গী ও… নিজস্ব সংবাদদাতা

জম্মু-কশ্মীরে জঙ্গী হামলায় নিহত ৪০ জওয়ান

গত ১৪ই ফেব্রুয়ারী জম্মু-কশ্মীরের পুলওয়ামা সি.আর.পি.এফ. কনভয়ে বিস্ফোরক ভর্তি একটি গাড়ী নিয়ে জঙ্গীরা ঢুকে পড়ে’ ভয়াবহ বিস্ফোরণ ঘটায়৷ ফলে,এই সংবাদ লেখা পর্যন্ত, অন্ততঃ ৪০ জন জওয়ান নিহত হয়েছেন৷ আহত প্রায়… পি.এন.এ.

বইমেলায় আনন্দমার্গের পুস্তক সম্পর্কে ক্রমবর্ধমান আগ্রহ

এবারে সল্টলেক সেন্ট্রাল পার্কে ৩১শে জানুয়ারী থেকে ১১ই ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত  আয়োজিত  বইমেলায়  আনন্দমার্গ পাবলিকেশনে বেশ ভিড় হয়েছিল৷  বলা বাহুল্য, এখানে মার্গগুরু শ্রীশ্রীআনন্দমূর্ত্তি রচিত ‘আনন্দমার্গ… নিজস্ব সংবাদদাতা

দেশকে সাম্প্রদায়িক দলবাজী থেকে বাঁচাতে আজ সৎ নীতিবাদী তরুণ-তরুণীদের সমাজ সেবায় এগিয়ে আসতেই হবে

প্রভাত খাঁ

ভারতবর্ষের বুকে সাম্প্রদায়িকতাকে উষ্কে দিয়ে দেশভাগের মানসিকতাকে হাতিয়ার করেই ১৯৪৭ সালে ইংরেজ সরকার নিছক রাজনৈতিক স্বাধীনতা দিয়ে যায় দেশকে৷ তারপর যা ঘটে চলেছে তার করুণ ইতিবৃত্তের সাক্ষী দেশবাসী! সেই কুফলের জ্বলন্ত নিদর্শন হলো ৩৭০ ধারার বিলুপ্তি৷ এতো বছর লেগে  গেল হতভাগ্য দেশের৷ সেদিন  বেশ কিছু রাজনৈতিক দল নিছক দলীয়  স্বার্থে এই দেশভাগকে সমর্থন করে৷ তারও পরিণতি দেখেছে  দেশবাসী৷

নেতাজীর সমন্বয়বাদ ও প্রাউটের সংশ্লেষণাত্মক মানবতাবাদ

আচার্য সত্যশিবানন্দ অবধূত

নেতাজীর চিন্তাধারার মূল কথা হ’ল–সমন্বয়বাদ৷ তিনি বলেছেন, ‘‘That synthesis is called by the writer samyavad—the Indian word, which means literally—the Doctrine of Synthesis or equality’’—(Indian Struggle by Netaji).

জয় করে তবু ভয় কেন তোর যায়না

আচার্য মন্ত্রসিদ্ধানন্দ অবধূত

স্বাধীনতার পর ৭৩ বছর অতিক্রান্ত৷ কিন্তু আজও দেশীয় ফ্যাসিষ্ট পুঁজিপতি ও তাদের পোষ্য রাজনৈতিক নেতাদের নেতাজী আতঙ্ক তাড়া করে বেড়াচ্ছে৷ একটা কথা পরিস্কার---১৯৪৫ সালের ১৮ই আগষ্ট তাইহোকু বিমানবন্দরে কোনও বিমান দুর্ঘটনা ঘটেনি৷ সুতরাং ওই দিন বিমান দুর্ঘটনায় নেতাজীর মৃত্যু একটি আষাঢ়ে গল্প মাত্র৷ তাইওয়ান সরকারও নেতাজীর অন্তর্ধান রহস্য উদ্ঘাটনে গঠিত মুখার্জী তদন্ত কমিশনের কাছে জানিয়েছেন ওই দিন তাইহোকুতে কোনও বিমান দুর্ঘটনাই ঘটেনি৷ ভারত সরকারের হাতে আজ পর্যন্ত এমন কোন তথ্য প্রমাণ নেই যে তাইহোকু বিমান দুর্ঘটনায় নেতাজী মারা গেছেন৷

স্বাধীনতার ৭২ বছরে অর্থনৈতিক শোষণ গণতন্ত্রকে প্রহসনে পরিণত করেছে

মনোজ দেব

ভারতের সামাজিক অর্থনৈতিক ব্যবস্থা পুঁজিতান্ত্রিক৷ প্রশাসন ব্যবস্থা গণতান্ত্রিক৷ মিশ্র অর্থনীতির এ এক ‘সোনার পাথরবাটি’৷ ভারতবর্ষকে বিশ্বের বৃহত্তম গতণন্ত্র বলে বড়াই করা হয়৷ কিন্তু স্বাধীনতার ৭২ বছর  পর দেশের চেহারা দেখলেই বোঝা যায় গণতন্ত্র এখানে এক বিরাট ভাঁওতা৷ গণতন্ত্র সম্পর্কে বলা হয়ে থাকে জনগণের দ্বারা, জনগণের জন্যে, জনগণের সরকার৷ কিন্তু পুঁজিতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থায় ভারতের গণতন্ত্রকে বলা যায়---বৈশ্যদের দ্বারা, বৈশ্যদের জন্যে, বৈশ্যের সরকার৷ জনগণ এখানে ভোট দেবার যন্ত্র মাত্র৷ রাজনৈতিক দল, আমলাতন্ত্র, প্রচারমাধ্যম, শিক্ষা-সংসৃকতি, পুলিশ-প্রশাসন এমনকি খেলার মাঠও বৈশ্য শোষকের কালো হাতের নিয়

জন্মদিনে  ঋষি অরবিন্দকে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন

প্রভাত খাঁ

অতীতের সেই স্বর্ণগর্ভা বাঙলার বুকে এমন  এক মহান ব্যষ্টিত্বের জন্ম হয়েছিল যাঁরা বিশ্বের বুকে চিরকাল স্মরণীয় হয়ে থাকবেন৷ তঁদের জন্যে এই বাঙলাও নিজেকে ধন্য মনে করে৷ তেমনই এক মহাসাধক, মহাজ্ঞানী, মহান বিপ্লবী হলেন ঋষি অরবিন্দ ঘোষ৷ তিনি জন্মগ্রহণ করেন হুগলী জেলার উত্তরপাড়ায় ১৮৭২ সালের ১৫ই আগষ্ট৷ তিনি ছিলেন একাধারে দার্শনিক রাজনৈতিক নেতা ও যোগী৷ তাঁর পিতার নাম ডাঃ কৃষ্ণমোহন ঘোষ৷ তাঁর পিতা চাইতেন তিনি উচ্চ সরকারী বিভাগে চাকুরী করে জীবন নির্বাহ করুন৷ সেই কারণে তিনি তাঁকে ইংল্যাণ্ডে আই.সি.এস.

স্বাধীনতা--- এ কেমন স্বাধীনতা!

জ্যোতিবিকাশ সিন্হা

ভারতের স্বাধীনতা সত্তর বছরে পদার্পণ করল৷ হাজার হাজার শহীদের রক্তের বিনিময়ে যে স্বাধীনতা আমরা পেয়েছি তার সামগ্রিক সুফল এই সত্তর বছরেও প্রকৃত অর্থে উপলব্ধ হয়নি৷ এখনও দেশের অধিকাংশ মানুষ সুশিক্ষিত হয়ে ওঠেনি৷ যদিও বিভিন্ন ভাবে সাধারণ মানুষকে শিক্ষিত করারও ছোটদের বিদ্যালয়মুখী করার জন্যে দ্বিপ্রাহরিক খাদ্য, শিক্ষা সংক্রান্ত কিছু সুযোগ সুবিধা ইত্যাদির মাধ্যমে বিক্ষিপ্ত প্রচেষ্টা চলছে৷ কিন্তু সমগ্র দেশের এক ও অভিন্ন সু-সংহত প্রকল্প না থাকার ফলে সেই প্রয়াস সাফল্যমণ্ডিত হচ্ছে না৷ শুধু তাই নয়, এখনও গ্রামে গঞ্জে প্রান্তিক মানুষজন বিশ্বাস করেন, একটি শিশুর যেমন খাওয়ার জন্য একটি মুখ আছে তেমনি কাজ করার জন্

বাংলা বানান  সংস্কার

জ্ঞানভিক্ষু

প্রাউট–প্রবক্তা মহান দার্শনিক ঋষি শ্রীপ্রভাতরঞ্জন সরকার ভাষাতত্ত্ব ও ব্যাকরণ বিজ্ঞানের ওপরও বহু অমূল্য পুস্তক রচনা করেছেন, যা কলকাতা, ঢাকা, কল্যাণী প্রভৃতি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা অধ্যাপক সহ বিশিষ্ট ভাষাতাত্ত্বিক ও জ্ঞানী গুণীজনের দ্বারা বহুল প্রশংসিত৷ তাঁর রচিত ‘প্রভাতরঞ্জনের ব্যাকরণ বিজ্ঞানে’ (৩ খণ্ড) তিনি বহু প্রচলিত অনেক বাংলা বানানের ভুলত্রুটি বা অর্থবিচ্যুতি দেখিয়ে সে সবের সংস্কার সাধনেও সচেষ্ট হয়েছেন৷ এ ধরনের কিছু বাংলা বানান সম্পর্কে তাঁর অভিমত তাঁর ভাষাতেই প্রকাশ করা হচ্ছে ঃ

গায়ত্রী