সংবাদ দর্পণ

শ্রীশ্রী আনন্দমূর্ত্তিজীর শুভ পদার্পণ দিবস পালন

সংবাদদাতা
নিজস্ব সংবাদদাতা
সময়

গত ১৪ই জানুয়ারী,২০২০ মঙ্গলবার আনন্দমার্গ প্রচারক সংঘের নিউ ব্যারাকপুর শাখায়  পরমারাধ্য মার্গগুরু শ্রীশ্রী আনন্দমূর্ত্তিজীর শুভ পদার্পণ দিবস (১৯৭৯ সালের১৪ই জানুয়ারী পরমারাধ্য মার্গগুরু শ্রীশ্রী আনন্দমূর্ত্তিজী কৃপা করে নিউ ব্যারাকপুরে এসেছিলেন)৷ এই শুভ  পদার্পণ দিবস উপলক্ষ্যে উক্ত দিন সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত মানবমুক্তির মহামন্ত্র বাবা নাম কেবলম্’ অখণ্ড সংকীর্ত্তন অনুষ্ঠিত হয়৷ ভক্তবৃন্দের মিলিত কীর্ত্তনের ধবনিতে আকাশ বাতাস মুখরিত হয়ে ওঠে৷ নিউব্যারাকপুর ও তার পার্শ্ববর্তী অঞ্চলের ভক্তবৃন্দের উপস্থিতিতে একটি মনোরম পরিবেশ তৈরী হয়৷ উপস্থিত সকলের উৎসাহ উদ্দীপনায় অনুষ্ঠানটি সুন্দরভাবে সম্পন্ন হয়৷ প্রভাত সঙ্গীত ও কীর্ত্তন পরিচালনা করেন আচার্য ভাবপ্রকাশানন্দ অবধূত, আচার্য বাসুদেবানন্দ অবধূত, আচার্য সত্যসাধনানন্দ অবধূত, আচার্য সেবাব্রতানন্দ অবধূত, মিতা দাস প্রমূখ৷ সেদিনের স্মৃতি স্মরণ করে মূল্যবান বক্তব্য রাখেন শ্রী সন্তোষ বিশ্বাস, শ্রী মোহন অধিকারী ছাড়াও আরো অনেকে৷ অনুষ্ঠানশেষে সকলকে প্রীতিভোজে আপ্যায়িত করা হয়৷ অনুষ্ঠানে শতাধিক দাদা-দিদি, মার্গী ভাই-বোন উপস্থিত ছিলেন৷ অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন আচার্য প্রমথেশানন্দ অবধূত৷

আনন্দনগর ভেটেরীনারি কলেজের ২০১৯-এর ফল প্রকাশ

সংবাদদাতা
নিজস্ব সংবাদদাতা
সময়

 আনন্দনগর ভেটেরীনারি কলেজের ফল প্রকাশিত হ’ল৷ ভেটেরীনারি সায়েন্সে এবার ১১ জন উত্তীর্ণ হয়েছে৷ ভেটেরীনারি ফার্মাসীতে ১৪ জন ছাত্র উত্তীর্ণ হয়েছে৷ ভেটেরীনারি ২ বৎসরের কোর্স ও ফার্মাসী ১ বৎসরের কোর্স৷ আগামী ২০২০ সালের জন্য ভর্তি শুরু হয়েছে৷ ।

 যোগাযোগ ঃ ৯৮০০০০০১৭৯ / ৯৯৩২২৪৯১২২

কেউটে খুঁড়তে কেঁচো

সংবাদদাতা
নিজস্ব সংবাদদাতা
সময়

বাংলায় প্রবাদ আছে --- কেঁচো খুঁড়তে কেউটে বের হবে৷ কিন্তু বুধবার সকালে বারুইপুরে কেউটে খুঁড়তে গিয়ে কেঁচো বের হলো৷ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বারুইপুর জেলের কাছে একটি বস্তা পড়ে থাকতে দেখে আশপাশের লোকজনের মধ্যে বোমার আতঙ্ক ছড়ায়৷ থানায় খবর গেলে থানা থেকে সিভিল ভলেণ্টিয়ার পাঠিয়ে স্থানটি ঘিরে রাখা হয়৷ বুধবার সিআইডির বোম্ব স্কোয়াড এসে বস্তা খুলে পায় মাটির টব ও কয়েকটি চারাগাছ৷ এলাকায় প্রশ্ণ উঠেছে এরকম একটি ঘটনায় রাতেই কেন বোম স্কোয়াডের লোকজন এল না৷

জে.এন.ইউ-এর ঘটনার নিন্দা করল ইউ.পি.টি.এ

সংবাদদাতা
নিজস্ব সংবাদদাতা
সময়

৫ই জানুয়ারী দিল্লীর জহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে সশস্ত্র দুষ্কৃতিরা নারকীয় তাণ্ডব চালায়৷ তাতে ছাত্র-ছাত্রা অধ্যাপিকা অনেকেই আহত হন৷ বিদ্যালয়ের নিরাপত্তা কর্মীদের সঙ্গে বাইরের কিছু মুখোশধারী দুষ্কৃতিদের যোগে এই ঘটনা ঘটে৷ কেউ কেউ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের দিকেও আঙুল তুলছে৷ ছাত্র সংসদের নেত্রী ঐশী ঘোষ অধ্যাপিকা সুচরিতা সেন সহ অনেকেই আহত হয় ওই হামলায়৷

ভারতের মত গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে দেশের রাজধানী শহরের একটি বিখ্যাত বিশ্ববিদ্যালয়ে এই ধরণের নক্কারজনক ঘটনার তীব্র নিন্দা করেন ইয়ূনিভার্সাল প্রাউটিষ্ট টিচার্স এ্যাশোসিয়েশনের সভাপতি ও প্রাক্তন শিক্ষক প্রভাত খাঁ৷ তিনি দুষ্কৃতিদের কঠোর শাস্তির দাবী জানান৷ তিনি বলেন এই ঘটনা বিশ্বের দরবারে ভারতের মাথা নীচু করে দিয়েছে৷ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও উপাচার্যের আচরণও শিক্ষক সমাজকে লজ্জায় ফেলেছে৷ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র ও নোবেল জয়ী অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় এই নৃশংস হামলার প্রতিবাদ করেছেন৷

২০০০ টাকার নোট জাল হচ্ছে বেশী

সংবাদদাতা
নিজস্ব সংবাদদাতা
সময়

৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট বাতিলের সময় প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন কালো টাকা ও জালনোটের কারবার বন্ধ করতে এই পদক্ষেপ নেওয়াহয়েছে৷

পুরোনো নোট বাতিলের পর বাজারে আসে নতুন ৫০০ ও ২০০০ টাকার নোট৷ ওই সময় সরকার দাবী করেছিল বিশেষ পদ্ধতিতে  তৈরী নূতন নোট সহজে নকল করা যাবে না৷  নোট বাতিলের তিন বছর পর কেন্দ্রীয় সরকারেরই একটি দপ্তর ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ডস্ ব্যুরোর প্রতিবেদনে জানাচ্ছে ২০১৭-১৮ সালে যে পরিমাণ জাল নোট উদ্ধার হয়েছে তার ৫৬ শতাংশ ২০০০ টাকার নোট৷ নোট বন্দী যে সব দিক দিয়েই ব্যর্থ ন্যাশনাল ক্রাইম ব্যুরোর সর্বশেষ এই প্রতিবেদনই তা স্পষ্ট করে দিয়েছে৷ প্রতিবেদনে আরও প্রকাশ সব থেকে বেশী জাল নোট উদ্ধার হয়েছে গুজরাট থেকে৷

এন.আর.সি.-র বিরুদ্ধে আমরা বাঙালীর বিক্ষোভ

সংবাদদাতা
নিজস্ব সংবাদদাতা
সময়

১২ই জানুয়ারী হাওড়ার আন্দুলে আমরা বাঙালী এন আর সি-র বিরুদ্ধে বিক্ষোভ সভা করে৷ এই সভায় বিভিন্ন বক্তা এনআরসি, এনপিআর যাতে বাঙলায় না করা যায় তার জন্যে সবরকম প্রতিবাদ আন্দোলনে সামিল হতে বাঙালী জনগোষ্ঠীকে আহ্বান জানায়৷ সভায় বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আমরা বাঙালী কেন্দ্রীয়কমিটির সদস্য জয়ন্ত দাশ, গোপাল রায়চউধুরী, অরূপ মজুমদার, মুরারী কাঁড়ার প্রমুখ৷

শ্রী জয়ন্ত দাশ বলেন---তথাকথিত প্রতিষ্ঠিত রাজনৈতিক দলগুলো আন্দোলনের নামে নিজেরা খেয়োখেয়ি করছে৷ কিন্তু আজ কেন্দ্রীয় সরকারের বাঙালী বিদ্বেষী ষড়যন্ত্র রুখতে হলে বাঙালীকে ঐক্যবদ্ধ হতেই হবে৷ সেই আবেদন নিয়েই আমরা বাঙালী বাঙালী জনগোষ্ঠীর কাছে এসেছে৷ আজকের বাঙালী শরণার্থীদের এই দূরাবস্থার জন্য দায়ী কংগ্রেস-কমিউনিষ্টরাও৷ ৫৫ বছরেরও বেশী সময় দিল্লীতে কংগ্রেস ক্ষমতায় ছিল৷ পশ্চিমবঙ্গে ৬৫ বছর কংগ্রেস কমিউনিষ্টরাই রাজত্ব করেছে৷ উদ্বাস্তু সমস্যার সমাধান এতদিনে কেন হয়নি৷ যদি পঞ্জাবী উদ্বাস্তু সমস্যার সমাধান হতে পারে, বাঙালীর ক্ষেত্রে তা কেন হ’ল না৷ এর জবাব কংগ্রেস, কমিউনিষ্টদের দিতে হবে৷ স্বাধীনতা সংগ্রামে দেশ ও সুভাষচন্দ্রের সঙ্গে যে বিশ্বাসঘাতকতা কংগ্রেস-কমিউনিষ্ট করেছে আর এস এসের সঙ্গে হাত মিলিয়ে তারপর বাঙালীর আর এদের ওপর বিশ্বাস রাখা উচিত নয়৷ তিনি বলেন আজ দিল্লীর হিন্দী সাম্রাজ্যবাদী শাসকের বাঙালী বিদ্বেষী ষড়যন্ত্র প্রতিহত করতে বাঙালীকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে পথে নামতে হবে৷

বারাসতে বিবেকানন্দের ১৫৭-তম জন্মদিবস পালিত

সংবাদদাতা
নিজস্ব সংবাদদাতা
সময়

গত ১২ই জানুয়ারী স্বামী বিবেকানন্দের ১৫৭-তম জন্মদিবস উপলক্ষ্যে বাঙালী ছাত্র যুব সমাজের পক্ষ থেকে বারাসত ষ্টেশনের সামনে একটি সভার আয়োজন করা হয়৷ বিবেকানন্দের প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়ে সভার কাজ শুরু হয়৷

সভায় উপস্থিত ছিলেন ছাত্র যুব সমাজের আহ্বায়ক তপোময় বিশ্বাস, বাপী পাল, মমতা ঘোষাল, মৌমিতা পাল প্রমুখ৷

শিয়ালদহে বাঙালী ছাত্র যুব সমাজের বিক্ষোভ

সংবাদদাতা
নিজস্ব সংবাদদাতা
সময়

গত ১০ই জানুয়ারী বাঙালী ছাত্র যুব সমাজের পক্ষ থেকে শিয়ালদহের মেন ষ্টেশনের সামনে এন.আর.সি., সি.এ.এ. ও জে.এন.ইয়ূ.তে তথাকথিত হিন্দুত্ববাদী ছাত্র সংঘটনের বর্বরোচিত হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ প্রদর্শন করা হয়৷ এই বিক্ষোভ সভার আয়োজন করেন বাঙালী ছাত্র-যুব সমাজের আহ্বায়ক শ্রীতপোময় বিশ্বাস৷ বিভিন্ন বক্তা জেএনইয়ু-র ঘটনার তীব্র নিন্দা করে বলেন---তথাকথিত ধর্মীয় মৌলবাদের এই ফ্যাসিষ্নট আচরণ বিশ্বের দরবারে ভারতের মাথা নত করে দিয়েছে৷ বক্তারা দোষীদের কঠোর শাস্তির দাবী করেন৷ যদি কোন ছাত্র এই ঘটনায় জড়িত থাকে তাদের অবিলম্বে বহিষ্কারের দাবী করেন ছাত্রনেতা তপোময় বিশ্বাস৷ সভায় আরও বক্তব্য রাখেন শ্রী বকুল রায়, জয়ন্ত দাশ, জ্যোতিবিকাশ সিন্হা প্রমুখ৷

এন আর সি-র প্রতিবাদে ‘আমরা বাঙালী’র বিক্ষোভ

সংবাদদাতা
নিজস্ব সংবাদদাতা
সময়

গত ১৪ই জানুয়ারী দক্ষিণ কলকাতার বিভিন্ন অঞ্চলে ‘আমরা বাঙালী’ কর্মী সমর্থকরা নাগরিক সংশোধনী আইন ও এন.আর.সি-র প্রতিবাদে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন৷ হাজরা পার্ক, কালিঘাট সহ বেশ কয়েকটি জায়গায় সভাও করেন৷ সভায় বক্তারা বলেন বাঙালীর রক্তে দেশ স্বাধীন হয়েছে৷ সেই বাঙালীর একজনকেও বিদেশী চিহ্ণিত করলে ফল খারাপ হবে৷ দেশে যে পরিস্থিতি সৃষ্টি হবে তার জন্যে দায়ী থাকবে কেন্দ্রীয় সরকার৷ সভায় বক্তব্য রাখেন আমরা বাঙালী-র কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য জয়ন্ত দাশ, বাঙালী মহিলা সমাজের নেত্রী অনন্যা সেনগুপ্ত, ছাত্র যুব সমাজের আহ্বায়ক তপোময় বিশ্বাস, কলকাতার জেলা সচিব গোপাল রায় চউধুরী, অরূপ মজুমদার, বাপী পাল প্রমুখ৷

স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিবস পালন

সংবাদদাতা
নিজস্ব সংবাদদাতা
সময়

মশাট, হুগলী  ঃ গত ১২ই জানুয়ারী হুগলী জেলার মশাটে ‘আমরা বাঙালী’ সংঘটনের পক্ষ থেকে স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিবস পালন করা হয়৷ স্বামীজীর প্রতিকৃতিতে মাল্যদান করেন প্রবীণ প্রাউটিষ্ট তথা ‘আমরা বাঙালী’ নেতা শ্রীযুক্ত প্রভাত খাঁ মহাশয়৷ উপস্থিত অন্যান্য নেতৃবৃন্দও স্বামীজীর প্রতিকৃতিতে মাল্যদান ও পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন৷ স্বামী বিবেকানন্দের জীবন ও আদর্শ সম্পর্কে নাতিদীর্ঘ আলোচনা করেন শ্রীযুক্ত প্রভাত খাঁ মহাশয় ও ‘আমরা বাঙালী’ সংঘটনের হুগলী জেলা সচিব শ্রীজ্যোতিবিকাশ সিন্হা৷ সমগ্র অনুষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা ও পরিচালনা করেন যুব নেতা শ্রী কৌশিক সাঁতরা ও শ্রী সন্দীপ পোড়েল৷